মেনু নির্বাচন করুন

ইউ.আই. এস.সি

ইউনিয়ন পরিষদ বাংলাদেশ সরকারেরস্থানীয় প্রতিষ্ঠানের সর্বনিম্ন একটি প্রতিষ্ঠান। প্রায় ১৫০ বছর পূর্বে ইউনিয়ন প্রথার সৃষ্টি হয়। ১৮৭০ সালে তৎকালীন বৃটিশ শাসনমলে গ্রামীণ পল্লী এলাকায় তাদের ভিত্তি দৃঢ় করতে এবং রাজনৈতিক, প্রশাসনিক, অর্থনৈতিক কর্মকান্ড পরিচালনার লক্ষ্যে তখনকার প্রশাসক লর্ড মেযো গ্রাম এলাকার জন্য প্রথম চৌকিদারী আইন পাশ করে। এই আইনের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্টানের উদ্ভব হয়। এই প্রতিষ্ঠান পরবর্তী সময়েকখনো ইউনিয়ন বোর্ড, কথনো ইউনিয় কাউন্সিল এবং ইউনিয়ন পরিষদ নামে পরিচালিত হয়ে আসছে। সেই ধারাবাহিকতায় স্বাধীন দেশে একটি গণতান্ত্রিক স্থানীয় সরকার ইউনটের ধারণা সৃষ্টি হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে ইউনিনের ভূীমকা গ্রাম এলাকর আইন শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তামূলক কর্মকান্ডে সীমাবদ্ধ থাকলেও পরবর্তী সময়ে এটা স্থানীয় সরকারের প্রাথমিক ইউনিটের ভিত্তিরম্নপে গড়ে উঠে।

বর্তমান সরকার ভিশন ২০১০ বাস্থবায়নের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার চিহ্নিত করে বিদ্যমান স্থানীয় করাকর কাঠামোতে আইসিটি পলিসি ২০০৯ এর আলেঅকে ডিজিটাল বাংলাদেশের কৌশলপত্র বাস্থবায়নের লক্ষ্যে প্রযুক্তি ব্যবাহার করে জনগণের দোরগোড়ায় সেবা নিশ্চিত করতে সারা দেশের সকল ইউনয়ন পরিষদে ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ স্থাপিত হয়েছে। এর  মাধ্যকে সরাসরি গ্রামীন জনপদে সরকারী বিভিন্ন সেবা যেমন ৫০ ধরণের সরকারী ফর্ম, এ-মেইল, ইন্টারনেট সেবা, জীবন ও জীবিকা সম্পর্কিত তথ্য প্রদান ইত্যাদিসহ জেলা ও উপজেলার ই-সেবা সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌছানের সুযোগ সৃষ্টি কছে।

প্রযুক্তি বৈসম্যের শিকার বাংলাদেশের বিশাল এই গ্রামীন জনপদ তথ্য-প্রযুক্তির ছোড়ায় বৈসম্য কাটিয়ে ওঠার মাধ্যমে সত্যিকার অর্থে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের দ্বারপ্রান্তে উপস্থিত হতে পেরেছি।


Share with :

Facebook Twitter